1. dailynarsingdi24@gmail.com : Daily Narsingdi 24 : Rabbi Sarker
  2. ojjalsarker@gmail.com : ডেইলি নরসিংদী ২৪ : ডেইলি নরসিংদী ২৪
     
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০৯:১০ পূর্বাহ্ন

পলাশে ২৩শ’ জুটমিল শ্রমিকের ১৪ কোটি টাকা বকেয়া

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৫ মার্চ, ২০২১
  • ২৪৫ বার পঠিত

ডেইলি নরসিংদী ২৪ : পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার বিজেএমসি নিয়ন্ত্রণাধীন বাংলাদেশ জুট মিলের ২ হাজার ৩০০ বদলি শ্রমিক। মিল বন্ধের ৯ মাস পার হলেও এখনো পর্যন্ত তাদের টাকা পরিশোধ করেনি মিল কর্তৃপক্ষ।

মিল বন্ধের সময় বলা হয়েছিল দুই মাসের মধ্যে চাকরি হারানো শ্রমিকদের সব দেনা-পাওনা মজুরি কমিশন-২০১৫ অনুযায়ী ৫০ শতাংশ তাদের ব্যাংক হিসাবে এবং বাকি ৫০ শতাংশ সঞ্চয়পত্র আকারে পরিশোধ করা হবে। তাছাড়া অচিরেই মিল সংস্কার করে রাষ্ট্রায়ত্ত সরকারি-বেসরকারি অংশীদারীত্বের (পিপিপি) ভিত্তিতে চালু করা হবে।

কিন্তু মিল বন্ধের ৯ মাস পার হলেও স্থায়ী শ্রমিকদের শুধু ৫০ শতাংশ টাকা তাদের নিজ নিজ ব্যাংক হিসেবে পরিশোধ করা হলেও বাকি ৫০ শতাংশ সঞ্চয়পত্র এখনো পরিশোধ করা হয়নি। এদিকে প্রায় আড়াই হাজার বদলি শ্রমিকদের এখনো পর্যন্ত কোনো টাকা পরিশোধ করেনি মিল কর্তৃপক্ষ। ফলে চরম হতাশার মধ্যে মানবেতর জীবনযাপন করছে মিলের চাকরি হারানো ২৩০০ শ্রমিক।

মিলের চাকরিহারা বদলি শ্রমিক আবুল কালাম বলেন, মিল বন্ধের ৯ মাস চললেও এখনো পর্ষন্ত আমরা কোনো টাকা পাইনি। পাবো কিনা তাও জানি না। পরিবার পরিজন নিয়ে কতো কষ্টে আছি তা আল্লাহই বলতে পারবে।

অপর বদলি শ্রমিক নিতাই বলেন, মিল বন্ধের সময় বলা হয়েছিল আগস্ট মাসের মধ্যে এককালীন সব বকেয়া পাওনা পরিশোধ করা হবে। এখন মিল কর্তৃপক্ষের কোনো খবর নেই। কথা বলার জন্যও মিলের কোনো কর্মকর্তাকে পাওয়া যায় না। স্ত্রী আর ছেলে-মেয়ে নিয়ে খুব কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। কোনো কাজ না পেয়ে এখন একটি সেলুনে কাজ করে অতি কষ্টে দিন পার করছি।

আরেক বদলি শ্রমিক আবুল খায়ের বলেন, স্ত্রী, দুই মেয়ে ও দুই ছেলে নিয়ে খুব কষ্টে দিন কাটছে। কোনো কোনো দিন না খেয়েও থাকা লাগে। মিল কর্তৃপক্ষ আমার বকেয়া পাওনা পরিশোধ করলে এই বৃদ্ধ বয়সে একটু শান্তিতে থাকতে পারতাম। এখন ভ্যান-রিকশা চালিয়ে সংসার চালাচ্ছি। এভাবে থাকলে ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়াও বন্ধ হয়ে যাবে।

মিলের সিবিএ সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জামান হতাশার সুরে বলেন, স্থায়ী শ্রমিকদের পাওনা টাকার ৫০ শতাংশ টাকা পেলেও বাকি ৫০ শতাংশ টাকা কবে দিবে তা অনিশ্চিত।

ব্যাপারে বাংলাদেশ জুট মিলের প্রকল্প প্রধান ইঞ্জিনিয়ার মতিউর রহমান মণ্ডল জানান, মিলের ২৩০০ বদলি শ্রমিকের মোট পাওনা বকেয়া ১৪ কোটি টাকা। আমরা হিসাব করে বিজেএমসিতে পাঠিয়েছি। সরকার মিলে টাকা পাঠালেই আমরা শ্রমিকদের টাকা পরিশোধ করে দেব।




নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..







© All rights reserved © 2021 dailynarsingdi24.com ।
Theme Customized By BreakingNews
x
error: