1. dailynarsingdi24@gmail.com : Daily Narsingdi 24 : Rabbi Sarker
  2. ojjalsarker@gmail.com : ডেইলি নরসিংদী ২৪ : ডেইলি নরসিংদী ২৪
     
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৩:৫৩ অপরাহ্ন

মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সরাসরি ভাতা প্রেরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৫৫ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট : দেশের সূর্য সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে জিটুপি পদ্ধতিতে সরাসরি সম্মানী ভাতা প্রেরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর ফলে এখন থেকে প্রতিমাসে ১ লাখ ৬৮ হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধা ঘরে বসেই মোবাইলের মাধ্যমে ১২ হাজার টাকা করে সম্মানী ভাতা পাবেন।

প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত মূল অনুষ্ঠানস্থল ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, সরকার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ‘মুজিববর্ষের উপহার’ হিসেবে ‘ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের সাহায্যে (এমআইএস) ‘জিটুপি’ পদ্ধতিতে ভাতার প্রচলন চালু করেছে। এর ফলে কারো কাছে আর সম্মানীর ভাতা চাইতে হবে না, সরাসরি বীর মুক্তিযোদ্ধারা মোবাইলে টাকা পেয়ে যাবেন। কারণ স্বাধীন দেশে বীর মুক্তিযোদ্ধারা অসম্মানিত হন, তা হতে পারে না।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রমের ওপর একটি অডিও ভিজুয়াল পরিবেশনা প্রদর্শিত করা হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ও অন্যান্য আর্থিক সুবিধা বাবদ গত ৫ বছরে প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। ২ লাখ ৫ হাজার ১৯৮ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা বা তাদের পরিবার বর্তমানে এ সুবিধা পাচ্ছেন।

সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় সাধারণ বীর মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ৪০ হাজার থেকে বৃদ্ধি করে ১ লাখ ৯২ হাজার ৫৩২ জনে উন্নীত করা হয়েছে। তাদের মাসিক সম্মানী ভাতার পাশাপাশি দুটি উৎসব ভাতা, জীবিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিজয় দিবস ভাতা ও সবার জন্য বৈশাখী ভাতাও চালু করা হয়েছে। বর্তমানে ভাতা বহুগুণ বৃদ্ধি করে মাসিক ১২ হাজার টাকা করা হয়েছে এবং এ ভাতা আরো বাড়ানো হবে বলে জানা গেছে।

এর আগে ৩ মাস অন্তর জেলা, উপজেলা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা প্রদান করা হতো। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগ সরকার প্রবর্তিত ৩০০ টাকার দুস্থ মুক্তিযোদ্ধা ভাতা বর্তমানে সকল মুক্তিযোদ্ধার জন্য সম্মানী ভাতা হিসেবে প্রবর্তিত হয়েছে।

পিএমও এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, যুদ্ধাহত, খেতাবপ্রাপ্ত ও শহিদ পরিবারবর্গের মাসিক সম্মানী ভাতার পরিমাণ পুনঃনির্ধারণ করা হয়েছে। ৬ হাজার ১৭৪ জন যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পঙ্গুত্বের ধরণভেদে ২৫ হাজার টাকা থেকে ৪৫ হাজার টাকা মাসিক সম্মানী প্রদান করা হচ্ছে। এছাড়া ৫ হাজার ৮১৬ শহিদ পরিবারকে মাসিক ৩০ হাজার টাকা, মৃত যুদ্ধাহত পরিবারকে মাসিক ২৫ হাজার টাকা, ৭ বীরশ্রেষ্ঠ শহিদ পরিবারকে মাসিক ৩৫ হাজার টাকা, বীর উত্তম খেতাবধারীগণ মাসিক ২৫ হাজার টাকা, বীর বিক্রম খেতাবধারীগণ মাসিক ২০ হাজার টাকা এবং বীর প্রতীক খেতাবধারীগণ মাসিক ১৫ হাজার টাকা হারে ভাতা পাচ্ছেন।

সম্মানী ভাতার পাশাপাশি শহিদ, যুদ্ধাহত ও ৭ বীরশ্রেষ্ঠ এবং তারামন বিবিসহ বীরপ্রতীক হিসেবে মোট ১১ হাজার মুক্তিযোদ্ধা পরিবার রেশন সামগ্রীও পেয়ে থাকেন। সামরিক-অসামরিক নির্বিশেষে সকল যুদ্ধাহত, শহিদ ও খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাগণকে রাষ্ট্রীয় সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে কল্যাণ ট্রাস্টের আইন পরিবর্তন করে ২০১৮ সালে নতুন আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে সর্বমোট ১১ হাজার ৯৯৮ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা বা তাদের পরিবারকে রাষ্ট্রীয় সুবিধা নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে।




নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..







© All rights reserved © 2021 dailynarsingdi24.com ।
Theme Customized By BreakingNews
x
error: